Header Ads

ক্যাল্কেরিয়া ফ্লুওরিকাম ( Calcarea Fluoricum) [ Calc. Fluor ]

ক্যাল্কেরিয়া ফ্লুওরিকাম ( Calcarea Fluoricum) [ Calc. Fluor ]
ক্যাল্কেরিয়া ফ্লুওরিকাম ( Calcarea Fluoricum) [ Calc. Fluor] 

অন্যনাম- ক্যালসিয়াম ফ্লুওরাইড

সাধারণ নাম- ফ্লুওরাইড অফ লাইম

সংক্ষিপ্ত নাম- ক্যাল্ক-ফ্লুওর [ Calc. Fluor ]

প্রস্তুত পদ্ধতি-ইহা একপ্রকার খনিজ পদার্থ এবং সহজপ্রাপ্য ধাতু বিশেষ। ইহা স্ফটিকের ন্যায় স্বচ্ছ এবং নানাবর্ণের ও নানা আকারে পাওয়া যায়। ইহা পানিতে দ্রব হয়; বিশুদ্ধ ফ্লুওরাইড অফ লাইম হইতে হোমিওপ্যাথিক বিচুর্ণন পদ্ধতি অনুসারে প্রস্তুত হইয়া ঔষুধার্থে ব্যবহৃত হয়। 

ক্রিয়া- ইহা দেহস্থ অন্ডলালা (অ্যালবুমেন) নামক পদার্থের সাথে মিশ্রিত হয়ে কার্যকরি হয়ে থাকে। ইহাতে শতকরা 54.21 ভাগ চুন আছে। কেহ কেহ বলেন যে, চুনের পরিমাণ উহা অপেক্ষা আরও বেশী, অর্থাৎ 58.2 ভাগ। অন্ডলালার সহিত মিশ্রিত হয়ে এই পদার্থ দাঁত ও হাড়ের উপরস্থ আবরণ (enamel) নির্মাণ করিয়া থাকে। এই জন্য দাঁত ও হাড়ের অপুষ্টিতা, অস্থিতে অর্বুদ, অস্থি-পীড়ায় পাথরের মত কঠিনতা, দাঁতের শিথিলতা, দাঁত ক্ষয় ই্ত্যাদি বিভিধ রোগ দেখা দেয়।

দাঁত ও হাড়ের ন্যায় ইহা শিরা, ধমনী ও চর্মের উপরিভাগে (এপিডার্মিসে) ক্রিয়া প্রকাশ করে থাকে এবং ইহার অভাব জনিত ক্রিয়ায় শিরা ও ধমনী স্ফীত হয়ে অর্শ, ধমনীর অর্বুদ, শিরাস্ফীতি প্রভৃতি পীড়া উৎপন্ন হয়। ইহা সর্বস্থানের সংযোগ টিশু (connective tissues) ও মাংস পেশীস্থ স্থিতিস্থাপক তন্তুসমূহ (elastic fibres) নির্মাণ করিয়া থাকে।

ইহার অভাবজনিত ক্রিয়ায় অমরা বিবিধ লক্ষণ দেথিতে পাই। 

* কোন স্থানের শিথিলতা। 

* আবার কোন স্থানে পাথরের মত কঠিনতা। স্থিতিস্থাপক তন্তুসমুহের অভাব হইলে ইহারা ক্রমগত স্ফীত হইয়া শিথিল ভাব ধারণ করে; কেননা ফ্লুওরাইড অফ লাইমের অভাবে ইহাদের সংকোচন শক্তি নষ্ট হইয়া যায়। জরায়ুর শিথিলতা, জরায়ুর শিথিলতাবশতঃ রক্তশ্রাব, দাঁতের শিথিলতা, জরায়ুর স্থানচ্যুতি, উদরের শিথিলতা প্রভৃতি লক্ষণ এই জন্য প্রকাশ পায় এবং তাহাতে এই ঔষধ ব্যবহারে আশ্চার্য ফলও পাওয়া যায়। ইহার অভাব জনিত ক্রিয়ায় শিরাদি স্ফীত হইলে অর্শের বলি উৎপন্ন হয়। শিরা ও ধমনীর স্থিতিস্থাপক তন্তু, কোন রসবাহী প্রণালী (lymphatic system  ) অথবা সংযোজক তন্তুতে

ইহার অভাবজনিত  ক্রিয়াও এই সমস্ত স্থানের স্বাভাবিক ক্রিয়া করিতে অসমর্থ হয় এবং রক্ত ও রক্তস্থ কঠিন পদার্থদি আশোষিত হইতে না পারিয়া ঐ সকল স্থানে কঠিন স্ফতি জন্মে। এইজন্য যে কোন যন্ত্র যে কোন রোগবশতঃই হোক না কেন, যদি পাথরেরমত কঠিন হয় তাহলে ইহার অভাবজনিত ক্রিয়ার সর্বশ্রেষ্ঠ নিদর্শন বলে জানতে হবে এবং উক্ত লক্ষণে এই ঔষধ কখনও বিফল হয় না।

ডাঃ শুসলার যখন এই ঔষধ ব্যবহার করিয়া বিবিধ রোগে সুফল পাইতে থাকেন, তখন হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকগণ ইহার প্রুভিং করেন এবং ব্যবহার করিতে থাকেন। কিন্তু হোমিওপ্যাথিক শাস্ত্রে বাইওকেমিকের ন্যায় ইহার এত বিস্তৃত ব্যবহার নাই। হোমিওপ্যাথগণ সাধারণতঃ হাড়ের রোগ ও কটিবাতে ইহা ব্যবহার করে থাকেন।


পরিচায়ক লক্ষণ ( Characteristic Symptoms )



অত্যন্ত অবসাদগ্রস্থ ও সন্দিগ্ধচিত্ত। অর্থনাশ হইবার ভয়। 


সদ্যোপ্রসূত শিশুর মস্তকের প্যারাইটাল অস্থিতে রক্তময় অর্বুদে (Blood Tumor) ইহা অমোঘ; মস্তকের 

অস্থির যে কোনও স্থান ফুলিয়া শক্ত হইলে এবং অস্থিক্ষতের চতুস্পার্শ কঠিন থাকিলে। 

ইহা ছানির অতি উৎকৃষ্ট মহৌষধ, বিশেষতঃ যদি উহা কঠিন হয়।  

চোকের কালো অংশে দাগ। 

দাঁতের শিথিলতার জন্য দাঁতে ব্যাথা এবং খাওয়ার সময় বৃদ্ধি। বেদনাহীন শিথিল দাঁত। দাঁতের 
শিথিলতার জন্য রক্তস্রাব। 

দাঁত উঠিতে দেরী ( ক্যাল্ক-ফস)। 

শীঘ্র শীঘ্র দাঁত ক্ষয় হয়ে যায়। 

স্ফোটক, ব্রণ, গ্রস্থিস্ফীতি ইত্যাদি পাথরের ন্যায় কঠিন হলে অব্যর্থ। পাথরের ন্যায় কঠিন হলে প্লীহা, যকৃৎ ইত্যাদিতেও ইহা উৎকৃষ্ট। 

যে কোন স্থানের অথবা যে কোন প্রকারের ক্ষত হউক না কেন, ক্ষতের চতুস্পর্শে কঠিন ও অমসৃণ হইলে এবং উহা হইতে দুর্গন্ধযুক্ত গাঢ় হরিদ্রাবর্ণের পুঁজময় স্রাব নির্গত হলে। 

অন্ত্রবৃদ্ধি বা হার্নিয়ায় ইহা অপেক্ষা ফলপ্রদ ঔষধ আর নাই। 

অতিশয় কুন্থনজনিত গুহ্যদ্বার বিদারণ রোগে (Fissure of the rectum) ইহাই সর্বপ্রধান ঔষধ। যন্ত্রণা টাকানি প্রভৃতিও এই ঔষধে আরোগ্য হয়। 

স্রাবী, অস্রাবী সকল প্রকার অর্শের ইহাই শ্রেষ্ঠ ঔষধ। কোষ্ঠবদ্ধ হইলে ইহা আরও উপযোগী। 

দুর্দমনীয় কোষ্ঠবদ্ধ, মল অনেকক্ষণ ধরিয়া মলভান্ডারে জমিয়া থাকিলেও বাহির হইতে চাহে না; অনেকক্ষণ ধরিয়া কুন্থন দিতে হয়।

অন্ডকোষে জল জমা এবং অন্ডকোষের প্রস্তরবৎ কঠিনতা সহ যে কোন প্রকার অন্ডকোষের পীড়া। 

অন্ডকোষের শীর্ণতাসহ অবিরত পষ্টেটিক রস ও শুক্রক্ষরণ। 

সর্বপ্রকার জরায়ু-স্থানচ্যুতির (কেলি ফস, ক্যাল্ক-ফস, নেট্রাম মিউর) সর্ব প্রধান ঔষধ। প্রসববেদনার ন্যায় বেদনা, মনে হয় যেন জরায়ু যোনিপথ দিয়া বাহির হইয়া যাইবে। জরায়ু কঠিন, নরম অথবা শিথিল যাহাই হউক না কেন ইহার ব্যবহার অপরিহার্য। 

জরায়ুর কাঠিন্যজনিত কষ্টরজঃ পীড়া এবং জরায়ুর শিথিলতা প্রযুক্ত অতিরিক্ত রক্তস্রাব, গর্ভস্রাব, অপ্রচুর প্রসববেদনা, ভ্যাদাল বেদনা ইত্যাদি যাবতীয় পীড়া। 

গর্ভাবস্থায় মধ্যে মধ্যে সেবন করিতে দিলে জরায়ুর বলাধান হইয়া সুপ্রসব হয়।

ডিফথিরিয়ায় কৃত্রিম ঝিল্লি শ্বাসনালী পর্যন্ত ব্যাপ্ত হইয়া পরিলে (ক্যাল্ক-ফস সহ)। 

দুর্দমনীয় কোষ্ঠবদ্ধ সহ উদরী পীড়া। উদর শক্ত এবং উদরের উপর শিরা সকল ভাসিয়া উঠিয়াছে দেখা যায়। 

অজীর্ণ বমন ফেরাম ফস দ্বারা উপকার না হইলে। 



পুরাতন কটিবাত। সেক্রাম অস্থিতে বেদনা, ভারবোধ ও ক্লান্তি। সর্বপ্রকার বাতবেদনা ঠান্ডায় ও প্রথম সঞ্চালনে বৃদ্ধি, উত্তাপে ও অবিরত নড়াচড়া করিলে উপশম। 

সর্দি ও কাশিতে বহুল পরিমাণে গাঢ়, দুশ্ছেদ্য দলা দলা সবুজ বা হরিদ্রাবর্ণের দুর্গন্ধ স্রাব। 

ওজিনা পীড়ায় পূর্বোক্ত স্রাবসহ অস্থি ক্ষত। 

আলজিহ্বা বৃদ্ধিবশতঃ গলা সুড়সুড় করিয়া শুষ্ক খকখকে কাশি। 

যে কোন স্থানের চর্ম ফাটা ফাটা হয়, তাহাতেই ইহা উপযোগী। পায়ের তলায় কড়া। চর্ম স্ফীত ও কঠিন। 

জিহ্বা ফাটা ফাটা প্রদাহের পর জিহ্বাকাঠিন্য-বেদনা থাক বা নাই থাক। 

পুরাতন জ্বরে প্লীহা যকৃতের বিবৃদ্ধিসহ কাঠিন্য। 

রক্তাল্পতা ( ক্যাল্ক-ফস)। 

উচ্চঃস্বরে পাঠ করিবার পর, অথবা অধিকক্ষণ উচ্চ হাস্যের পর স্বরভঙ্গ। 

সর্বপ্রকার লক্ষণ আদ্র বায়ু ও আদ্র স্থানে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়। উত্তাপে ও শুষ্ক স্থানে পীড়া লক্ষণের হ্রাস। 

অস্থি ও বাতপীড়া নড়া-চড়ায় পীড়া লক্ষণের উপশম, চুপ করিয়া থাকিলে বৃদ্ধি। 
বৃদ্ধি - স্যাঁতসেঁতে বা ভিজা স্থানে, আদ্র বায়ুতে, অস্থিপীড়ায় ও বাতে এবং বিশ্রামে বৃদ্ধি। 

হ্রাস- অস্থি ও বাতপীড়ায় উত্তাপে এবং নড়াচড়ায় হ্রাসপ্রাপ্ত হয়। অনেক পীড়া, বিশেষতঃ গলাভ্যন্তরের পীড়া উত্তাপে এবং উত্তপ্ত পানীয়ে হ্রাস। হাত বুলাইয়া দিলে উপশম বোধ হয়।

শক্তি- ডাঃ শুসলার বলেন যে, 12X ই সর্বোৎকৃষ্ট

[ক্যাল্কেরিয়া ফ্লুওরিকাম ( Calcarea Fluoricum) [ Calc. Fluor ] best remedy for blood tumor, cataract, dental caries, abscess, ulcers, carbuncles, hernia, fissure of rectum, fistula in ano, piles, constipation, syphilis, disease of testicle, displacement of the uterus, miscarriage, pregnancy and labour, mastitis, tumour, diphtheria, disease of spleen and liver, ascites, dyspepsia, goitre, disease of ear, coryza, cough, hoarseness, asthma, chronic tonsillitis, palpitation, emphysema, lumbago, rheumatism, gout, hodgkin cancer, fever, শিশুর প্যারাইটার বোনে রক্তময় অর্বুদ, ছানি, দন্তবেদনা, দন্তক্ষয়, দন্তোদ্গমনকালীন পীড়া, দাঁত হতে রক্তস্রাব, স্ফোটক, ক্ষত, ব্রণ, হার্নিয়া, গুহ্যদ্বার বিদারণ, ভগন্দর, অর্শ, কোষ্ঠবন্ধতা, অন্ডকোষের পীড়া, জরায়ুর স্থানচ্যুতি, রক্তপ্রদর, কষ্টরজ, গর্বস্রাব, স্তনগ্রন্থি প্রদাহ, অর্বুদ, ডিপথিরিয়া, প্লীহা ও যকৃতের পীড়া, উদরী, অজীর্ণ, গলগন্ড, কর্ণপীড়া, বাত, গেঁটবাত রোগে ব্যবহৃত বাইওকমিক ঔষধ ] [শারিরিক ও মানসিক লক্ষণ থাকা জরুরী]

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.