Header Ads

থাইরয়েডিনাম ও থাইরো আয়োডিনাম (Thyroidinum and Thyro Iodinum)

থাইরয়েডিনাম ও থাইরো আয়োডিনাম (Thyr)

থাইরয়েডিনাম ও থাইরো আয়োডিনাম (Thyroidinum and Thyro Iodinum)
থাইরয়েডিনাম ও থাইরো আয়োডিনাম (Thyroidinum and Thyro Iodinum)
[Thyreoidinum- Dried thyroid glands from sheep and calves]
আমাদের কন্ঠ ও বক্ষের উপর অংশে অবস্থিত তিনটি গ্রন্থি থাইরয়েড, প্যারা থাইরয়েড ও যৌবনে অবলুপ্ত থাইমাস।  বাংলা ভাষায় উহাদের নাম যথাক্রমে ফলক গ্রন্থি এবং গ্রন্ডুক গ্রন্থি। 

থাইরয়েড গ্রন্থি গ্রীবাদেশে শ্বাসনালীর সম্মুখে অবস্থিত।  ঢালের আকর বলিয়া উহাকে ফলক গ্রন্থি নাম দেওয়া হইয়াছে।  হোমিওপ্যাথিক মতে ভেড়ার ফলক গ্রন্থি শুষ্ক করিয়া থাইরয়েডিন ঔষধটি প্রস্তুত হইয়াছে, তাহার নাম থাইরো আয়োডিন। 

এই গ্রন্থিটির দুইটি সুস্পষ্ট অংশ একটি সুর যোজকের দ্বারা সংযুক্ত আছে। কামারের হাপর যেমন অক্সিজেন সরবরাহ করিয়া আগুনের তেজ বাড়াইয়া দেয়, এই গ্রন্থিটির রসও ঠিক তেমনি ভাবে দেহের বিপাক শক্তিকে বাড়াইয়া দিয়া খাদ্যের সমীকরণের সুব্যবস্থা করে।।

এই গ্রন্থিরসের অভাবে ক্রেটিনিজম নামক অপুষ্টি রোগ দেখা দেয়। এই  রোগে শিশুর দাঁত উঠে না; দেহের বৃদ্ধি হয় না, শরীরের চামড়া পুরু হয়, কুচকাইয়া যায়, পেটটি ঘটের মত হইয়া উঠে, অঙ্গগুলি ও হাত পায়ের পাতা ছোট হইয়া যায়, কেমন যেন বানরের মত হাব ভাব ফুটিয়া উঠে। ডাঃ বোরিক ইহাকে শিশুদের শীর্ণতা রোগ ও রিকেট রোগে ব্যবহার করিতে উপদেশ দিয়াছেন। শিশর ভাঙ্গা অস্থি জোড়া লাগে না, অন্ডকোষ ঝুলিয়া পড়ে না। ঔষধটি সাধারণভাবে শরীর বিধানের পরিপোষণ করে। এই শিশুর অধিক পরিমাণে মিষ্টি খাওয়ার প্রবৃত্তি থাকিলে আরও উপযোগী হয়।  2X বা 3 X শক্তির ঔষধ দিনে ২বার ব্যবহার করিলে দ্রুত উপকার হইয়া থাকে। ইহা দ্বারা শিশুর স্মৃতিশক্তির বৃদ্ধি হয়। 


যৌবনে এই গ্রন্থির ক্ষরণ হ্রাস পাইলে মেক্সিডোনা নামক মেদবৃদ্ধি রোগ দেখা দেয়। উহাতে হৃৎপিন্ডের ক্রিয়া কমিয়া যায়, চুল পড়িয়া যায়, গায়ের চামড়া হলদে হইয়া যায়, প্রজনন শক্তি কমিয়া যায়, শরীরের তাপ অস্বাভাবিক ভাবে হ্রাস পায়, এবং পরিপাক শক্তি নষ্ট হইয়া যায়। ডাঃ বোরিক এই অবস্থা বর্ণনা করিতে নিম্নলিখিত লক্ষণগুলির উল্লেখ করিয়াছেন, “রক্সাল্পতা, শীর্ণতা, পেশী সংক্রান্ত দূর্বলতা, ঘর্ম, শিরঃপীড়া, মুখ ও অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের স্নায়বিক কম্পন, ঝিন ঝিন করার অনুভূতি।”

ডাঃ বোরিক ঔষধটিকে আরো কতিপয় অবস্থায় উপযোগী বলিয়া বর্ণনা করিয়াছেন। 
১. স্তন গ্রন্থিতে অর্বুদ (2X বিচুর্ণ); জরায়ুতে সৌত্রিক অর্বুদ; 
২. রক্তের নিম্নচাপ, রোগী শীতার্ত, ঠান্ডা সহ্য করিতে পারে না (2X বা 3 X বিচুর্ণ দিনে 3বার)। 

এই গ্রন্থির অস্বাভাবিক ক্ষরণে এক প্রকার গলগন্ড রোগ দেখা যায়।  উহাকে Exopthalmic Goitre আবার Grave's Disease বলা হইয়া থাকে।  এই রোগকে আমরা বাংলায় “ছানা বড়া চোখযুক্ত গলগন্ড” বলিতে পারি।  এই রোগে দেহের সকল প্রকার বিপাক ক্রিয়ার বৃদ্ধির জন্য, দেহ ক্ষণ হইয়া পড়ে, বুক ধড়ফড় করে, দেহের স্বাভাবিক উত্তাপ বাড়িয়া যায়, সঙ্গে সঙ্গে মধুমেহ রোগ জন্মে। গলগন্ডের সহিত চোখ দুইটি এমন ভাবে প্রকল হইয়া পড়ে যে মনে হয় যেন উহা ছুটিয়া বাহির হইয়া আসিবে। অতিক্ষরণ জনিত রোগ যে সহজসাধ্য নহে।  ডাঃ ডিউই বলেন,“থাইরয়েডিন এই রোগের পক্ষে একটি কার্যকরী ঔষধ। ইহা রোগীর বিপাক ক্রিয়া এবং বৃদ্ধিকে সংযত করে এবং সামান্য উত্তেজনায় বুক ধড়ফড় লক্ষণ থাকিলে ছনা বড়া চোখ যুক্ত গলগন্ড রোগ আরোগ্য করে।” তিনি ঔষধটি উচ্চ শক্তিতে ব্যবহার করিতে নির্দেশ দিয়াছেন এবং নিম্নশক্তির ঔষধকে অপকারী বলিয়াছেন। 

অনেক ক্ষেত্রে, বিশেষতঃ আমাদের দেশে, আর এক প্রকার সাধারণ প্রকৃতির গলগন্ড রোগ দেখা যায়। উহা সাধারণতঃ আয়োডিনের অভাব অথবা পানীয় জলে অভ্র প্রভৃতি ধাতুর অবস্থানের জন্য দেখা যায়।।  আয়োডিনের অবাব পূরণ জন্য থাইরয়েড গ্রন্থির সেলগুলির ক্ষরণের অতিচেষ্টায় এই অবস্থাটি ঘটিয়া থাকে।  এই রোগেও কৃশতা, বুক ধড়ফড় করা প্রভৃতি বর্তমান থাকে। এই রোগে থাইরয়েডিন অপেক্ষা থাইরো আয়োডিন অধিকতর উপযোগী।  ডাঃ বোরিক বলেন, “ অতিরিক্ত ক্ষুধা সত্ত্বেও শীর্ণতা” ইহার পরিচায়ক লক্ষণ।

থাইরয়েডিনের আর একটি বিশেষ উপযোগিতা (Psoriasis) নামক শুষ্ক চর্মরোগে এবং শূষ্ক একজিমায়।  ডাঃ এইচ ভি হেলভার্ট বলেন, “ চর্মের বিকৃতি ও শূষ্কতা এবং হাত পায়ের শীতলতা” ইহার প্রকৃষ্ট প্রয়োগ লক্ষণ। এই ঔষধ প্রয়োগে চর্মরোগ ( একজিমা) প্রথম প্রথম কিছুটা বাড়িতে পারে কিন্তু উহা শুভ লক্ষণ।  ডাঃ হালভার্ট এর একটি কথা বিশেষ ভাবে উল্লেখযোগ্য- “সোরিয়েসিস রোগ ক্যান্সার রোগেরই পূর্বাভাস, সুতরাং রোগীর চর্মের অবস্থা বিশেষ ভাবে লক্ষ্য করিবেন।” বহু চর্ম রোগগ্রস্ত রোগী এই ঔষধটি দ্বারা আরোগ্য হইয়াছে। 

প্রয়োগলক্ষণ 
মন- অঘোর নিদ্রা ও অস্থিরভাব সহিত বিপদভাব পর্যায়ক্রমে উপস্থিত হয়। উত্তেজনাপ্রবণ, সামান্য কারণে চটিয়া উঠে।

মস্তক- মস্তিষ্ক হালকা বোধ করে। সম্মুখ কপালে অবিরাম শিরঃপীড়া। চক্ষুতারকা উজ্জল।

হৃৎপিন্ড-ক্ষীণ, অবিরাম নাড়ী। বক্ষে উদ্বেগ বোধ। সামান্য পরিশ্রমে বুক ধড়ফড়ানি।  হৃৎপিন্ড স্থানে ব্যাথা। সামান্য করণেই হৃৎপিন্ডের উত্তেজনা জন্মে। অঙ্গগুলি অবশ মনে হয়।

পাকস্থলী-মিষ্টি দ্রব্যের আকাঙ্খা; শীতল জল পানের পিপাসা। গাড়ী চড়িলে বমন ভাব। পেটে বায়ু সঞ্চয়।

মুত্রযন্ত্র-মূত্র প্রবাহ বর্ধিত। বহুমূত্র, মূত্রে কিছুটা অন্ডলাল ও শর্করা। উত্তেনাপ্রবণ ও স্নায়বিক প্রকৃতির শিশুদের শয্যামূত্র (2X ঔষধ অর্থ গ্রেণ মাত্রায় প্রাতে ও সন্ধ্যায় ব্যবহার্য)।

হস্ত-পদাদি- বাতজ গ্রন্থি প্রদাহ তৎসহ মেহ প্রবণতা। শাখা প্রশাখার শীতলতা ও খালধরা। হস্ত পদের কম্পন।

চর্ম- বিচর্চিকা তৎসহ মেদাধিক্য ( বর্ধনশীল অবস্থায় নহে) একজিমা। জরায়ুতে সৌত্রিক তন্তু সঞ্চয়। গ্রন্থিসমূহ স্ফীত ও শক্ত। কমলা রোগ সহ চুলকানি। মীনবক্ষিকা, এককুষ্ঠ। উদ্ভেদ নাই অথচ চুলকানি, রাত্রিকালে বৃদ্ধি।

[থাইরয়েডিনাম ও থাইরো আয়োডিনাম (Thyroidinum and Thyro Iodinum) best alternative remedy for hyperthyroidism and total basedow's disease ( 12x and higher potencies). Low potencies for giter (struma), myxoedema, psoriasis, cretinism, obesity ( adiposity, lipomatosis), chronic dry eczema.]
 

২টি মন্তব্য:

Blogger দ্বারা পরিচালিত.