Header Ads

Nitric Acid [ নাইট্রিক এসিড ] Nitricum acidum [Nit-ac]

হোমিওপ্যাথিক ঔষধ Nitric Acid [ নাইট্রিক এসিড ] Nitricum acidum [Nit-ac]  এর লক্ষণ বৈশিষ্ট্য ঔষধ সম্পর্ক ও প্রয়োগ ক্ষেত্র।

হোমিওপ্যাথিক ঔষধ Nitric Acid [ নাইট্রিক এসিড ] Nitricum acidum [Nit-ac]  এর লক্ষণ বৈশিষ্ট্য ঔষধ সম্পর্ক ও প্রয়োগ ক্ষেত্র। 

[হোমিওপ্যাথিক ফার্মাকোপিয়া অনুযায়ী প্রস্তুতকৃত অম্ল তথা মিনারেল গ্রুপের একটি ঔষধ]

নাইট্রিক এসিড ঔষধটি সোরিক, সাইকোটিক, সিফিলিটিক ও টিউবারকুলার রোগীর ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়ে থাকে। 

কি-নোটস

কৃশ, দৃঢ় তন্তুযুক্ত, কালবর্ণ, কাল চুল, কাল চক্ষু ব্যক্তির পক্ষে বিশেষভাবে উপযোগী; সুন্দরীর চেয়ে শ্যামাঙ্গী এবং স্নায়বিক প্রকৃতি স্ত্রীলোকদিগের পক্ষে অধিক উপযোগী। 

যে সকল লোক পুরাতন পীড়ায় ভুগিতেছে, যাহাদের সহজেই ঠান্ডা লাগে, সহজেই উদরাময় দেখা দেয়। কোষ্ঠবদ্ধতা স্বভাবযুক্ত ব্যক্তির পক্ষে এই ঔষধ কদাচিৎ উপযোগী হইয়া থাকে। 

অত্যন্ত দূর্বলতা এবং উদরাময় স্বভাবযুক্ত বৃদ্ধ লো। 

অতিশয় শারীরিক উত্তেজনাপ্রবণতা। 

বেদনা- খোঁচামারার ন্যায়, চোঁচফোটানর ন্যায়, অকস্মাৎ আবার আকস্মাৎ চলিয়া যায়। বেদনা উত্তাপের অথবা আবহাওয়ার পরিবর্তনে ও নিদ্রাকালে উপস্থিত হয়, উহা শরীরের যেখানে সেখানে কামড়ানির ন্যায়, যেন ক্ষত উৎপন্ন হইতেছে এরূপ। 

অনুভূতি-যেন মাথা বেড়িয়া অথবা অস্থির চারিপাশে একটি ফিতা বাঁধা রহিয়াছে (কার্ব িএসি, সালফ); যেন আক্রান্ত অঙ্গে, ক্ষতে, অর্শ বলিতে, গলগহ্বরে, পায়ের নখকুনির মধ্যে একটি চোচ ফোটান রহিয়াছে সামান্য স্পর্শে বৃদ্ধি। 

ভগ্নস্বাস্থ্য ধাতুবিকৃতিযুক্ত ব্যক্তির, কোনপ্রকার তীব্র বিষ হইতে উৎপন্ন পারদ, সিফিলিস বা গন্ডমালাদোষ দোষ হইতে উৎপন্ন পীড়া। 

দীর্ঘকাল ধরিয়া অনিদ্রা, দীর্ঘকালস্থায়ী উৎকন্ঠা, পীড়িতের সেবা করিয়া মন ও দেহের অতিশ্রম (কক্কিউল); কোন প্রিয়জনের বিয়োগ জনিত উৎকন্ঠা হইতে পীড়া, ঔদাসীন্য, জীবনে ক্লান্তি, ঋতুস্রাবের পূর্বে বিষন্নতা। 

নিজের রোগ সম্বন্ধে অত্যন্ত উৎকন্ঠা; সে তাহার অতীত কষ্ট সম্বন্ধে অবিরত চিন্তা করে, কলেরা রোগ সম্বনেধ অলীক ভয় (আর্স); সন্ধ্যাকালে বিষন্ন ও উৎকন্ঠিত হইয়া পড়ে। 

উত্তেজনাপ্রবণ, উগ্রস্বভাব, ঘৃণাপূর্ণ, প্রতিহিংসাপরায়ণ, বদ্ধমূল বিদ্বেষভাবযুক্ত, কুমতলবযুক্ত, ক্ষমা চাহিলেও নরম হয় না এরূপ প্রকৃতি। 

শ্রবণশক্তির ক্ষীণতা; গাড়ী ও ট্রেনে চড়িলে উপশম (গ্র্যাফাই)।

পাকা রাস্তা দিয়া গাড়ী চলার ঘড়ঘড় শব্দে অত্যন্ত অনুভূতিপ্রবণ, টুপির চাপ হইতে শিরঃপীড়া জন্মে (ক্যাল্ক ফস, কার্ব ভেজ, নেট্রাম মিউর)। 

পুতিনস্য, প্রত্যহ সকালবেলা নাসিকা হইতে সবুজবর্ণের মামড়ি নির্গত হয়। 

উদরাময়- অত্যন্ত কুন্থন কিন্তু সামান্যমাত্র মল নির্গত হয়, মনে হয় যেন মল রহিয়া গেল, নির্গত করিতে পারা গেল না ( এলুমেন); 

মনে হয় যেন সরলান্ত্র অথবা মলদ্বর ছিন্ন হইয়াছে বা ফাটিয়া গিয়াছে (নেট্রাম মিউর); মলত্যাগের পর তীব্র কর্তনবৎ যন্ত্রণা কয়েক ঘন্টা স্থায়ী হয় ( র‌্যাটান, সালফ; মলত্যাগকালে ও পরে-মার্ক)। 

সরলান্ত্র ফাটা ফাটা, মলত্যাগকালে আক্ষেপিক ছিন্নকর যন্ত্রণা, উহা মলত্যাগের পরেও থাকিয়া যায় (এলুমেন, নেট্রাম মিউর, র‌্যাটান)। 

মূত্র-অল্প, গাঢ় বাদামীবর্ণ, উগ্র গন্ধযুক্ত “অশ্বমূত্রের ন্যায় দূর্গন্ধ” মূত্রত্যাগকালে উহা ঠান্ডা বোধ হয়, ঘোলাটে, মদের পিপার তলানির ন্যায় দেখায়। 

ক্ষত- ক্ষত হইতে সহজেই রক্তপাত হয়, মুখের কোণে ক্ষত (নেট্রাম মিউর) চোচফোটার ন্যায় যন্ত্রণা (হিপার), ক্ষতের কিনারাগুলি আঁকা-বাঁকা, অসমান, কাঁচা মাংশের ন্যায় দেখায়, উহাতে প্রচুর মাংসাঙ্কুর জন্মে; পারদ ব্যবহার অথবা সিফিলিসের জন্য অথবা উভয়ের মিলিত দোষহেতু ক্ষত। 

স্রাব-পাতলা, দূর্গন্ধ, বিদাহী, বাদামী অথবা মলিন হরিদ্রাভ সবুজবর্ণ; ক্ষতের পুঁজ কদাচিৎ স্বাস্থ্যকর হয়। 

রক্তস্রাব- টাইফয়েড বা টাইফাস জ্বরে অন্ত্র হইতে রক্তস্রাব (ক্রোটেল, মিউ এসি), গর্ভপাতজনিত বা প্রসবান্তিক রক্তস্রাব, প্রচুর অথবা কালচে। 

চর্বণকালে কানের মধ্যে কটকট শব্দ হয়, চলিবার সময় সন্ধিস্থানে কটকট শব্দ হয় (কক্কিউল, গ্র্যাফাই)। 

আঁচিল, উপমাংস-প্রমেহ বা সিফিলিস বিষজাত, আঁচিল বৃহৎ, খাঁজকাটা, বোঁটাযুক্ত, ধৌত করিলে সহজেই রক্তপাত হয়; আঁচিল আর্দ্র, রসানিযুক্ত, খোঁচামারা বেদনাযুক্ত ( ষ্ট্যাফিস, থুজা)। 

বিশেষভাবে দেহের শ্লেষ্মাস্রাবী দ্বারসমূহ যেস্থলে চর্ম ও শ্লৈষ্মিক ঝিল্লী মিলিত হইয়াছে, যথা মুখগহ্বর, নাসিকা, সরলান্ত্র, মলদ্বার, মুত্রপথ, যোনিদ্বার প্রভৃতিকে আক্রমণ করে ( মিউ এসি)। 

সম্বন্ধ-অণুপুরক-আর্স এবং ক্যালাডি। 

ল্যাকেসিসের সহিত বিরুদ্ধ সম্বন্ধযুক্ত। 

কলেরা রোগের অলীক ভয়ে আর্স সদৃশ। 

অনেক ক্ষেত্রে মার্ক হইতে পার্থক্য নির্ণয় করা কঠিন হয়; কিন্তু নােই এসি কাল চুলবিশিষ্ট লোকদের পক্ষে এবং মার্ক হালকা চুলবিশিষ্ট লোকদের পক্ষে উপযোগী। 

পারদ অপব্যবহারজনিত রোগসমূহে উপযোগী, বিশেষতঃ যদি ধাতুদোষজনিত উপদাহ বর্তমান থাকে; পুনঃপুন ডিজেটেলিস প্রয়োগের মন্দফল দূর করে। 

ক্যাল্ক কার্ব, হিপার, মার্ক, নেট্রাম কার্ব, পালস, অথবা থুজার পর ভাল উপকার পাওয়া যায়, কিন্তু কেলি কার্বের পরেই ইহা সর্বাধিক উপযোগী। 

উপচয় (বৃদ্ধি)- সন্ধ্যাকালে ও রাত্রে; মধ্যরাত্রির পরে, স্পর্শে, বায়ুমন্ডলের উত্তাপ ও আবহাওয়ার পরিবর্তনে, ঘর্মকালে, নিদ্রাভঙ্গে, চলিয়া বেড়াইবার সময়। 

উপশম- গাড়ী চড়িয়া চলিবার সময় (বিপরীত কক্কিউল)। 

[শক্তি] 

Nitric Acid 12 

Nitric Acid 30

Nitric Acid 200

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.