Header Ads

Dyspepsia/ Indigestion অজীর্ণ / অজীর্ণতা / বদ হজম / গর হজম রোগে ব্যবহৃত সাধারণ ঔষধ সমূহ

রাত জাগা, নেশা করা, অতিরিক্ত হস্তমৈথুন, তেল-ঘি বেশী পরিমাণে খাওয়া, আঘাত জনিত কারণ প্রভৃতির জন্য অজীর্ণ রোগ হয়। এ রোগ হলে যে সকল লক্ষণ প্রকাশ পায় তা হলো- পেট কামড়ানি, পেট ভার, পেট ব্যথা, খাদ্যে অরুচি, ক্ষুধামন্দা, গলা বুক জ্বালা করা, ঢেকুর, টক ঢেকুর, বুক ধড়ফড় করা, পেটে বায়ু সঞ্চয়, জিব অপরিস্কার বা জিভে ঘোলাটে আস্তরণ, নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ, পেটের অসুখ, বমি অথবা বমি-বমি ভাব প্রভৃতি। লক্ষণ বিবেচনা করে ঔষধ খাওয়ালে তাড়াতাড়ি রোগ সেরে যায়। 
Dyspepsia/ Indigestion অজীর্ণ / অজীর্ণতা / বদ হজম / গর হজম রোগে ব্যবহৃত সাধারণ ঔষধ সমূহ


খাদ্য দ্রব্য পেটে গিয়ে ভালভাবে জীর্ণ না হলেই তাকে অজীর্ণ বলা হয়। হজম না হলেই গর হজম বা বদহজম। অতিভোজন, অনিয়মিত ভোজন, তৈলাক্ত বা চর্বিযুক্ত দ্রব্য ভোজন, গরুপাকদ্রব্য ভোজন, রাত্রি জাগরণ, অধিক চা পান, সিগারেট সেবন থেকে অজীর্ণ হয়। পেটফাঁপা, কোষ্ঠবদ্ধতা, উদরাময়, ক্ষুধা মন্দা, বমিভাব অরুচি ইত্যাদি এই রোগের লক্ষণ।

প্রধান প্রধান ঔষধ ঃ নাক্সভোম, পালসেটিলা, কার্বোভেজ, লাইকোপোডিয়াম, চায়না, সালফার প্রভৃতি।

(১) নাক্সভোম ঃ- অমিতচারী, মদ্যপায়ী, তামাকসেবী লোকদের রাত জাগার কারণে অজীর্ণ হলে এটি উপকারী। বার বার পায়খানা যায়, কিন্তু অতি অল্পই পায়খানা হয় কিংবা তৃপ্ত হয় না। মুখের স্বাদ তিক্ত।

(২) পালসেটিলাঃ- তৈল ঘি গুরুপাক খাদ্য আহারের ফলে রোগ হলে। চর্বিযুক্ত মাংস, পোলাও, তেলেভাজা পিঠা, মিষ্টি দ্রব্য খেয়ে অজীর্ণ  হলে উপকারী। এতে রোগীর পিপাসা থাকে না।

(৩) কার্বোভেজঃ- কোষ্ঠবদ্ধতা, পেটে ভার বোধ, বায়ু নীচের দিকে সরাতে থাকে, ক্ষুধা কম উদরাময়, মাথা ধরা, বুক জ্বালা, পেট ফাঁপা, পেট ভুটভাট করা প্রভৃতি লক্ষণ থাকলে উপকারী হয়। 

(৪) চায়নাঃ- সারা পেটে বায়ু সঞ্চয় হলে ব্যবহার করা যেতে পারে। 

(৫) আর্নিকাঃ- ভারী জিনিস তোলার জন্য বা পেটে আঘাত লাগার জন্য  এ রোগ হলে উপকারী।

(৬) অ্যাবিসনাইগ্রাঃ- কোষ্ঠবদ্ধতা, খাবার পরেই পাকাশয়ে ভীষণ যন্ত্রণা, পাকাশয়ে শক্ত কিছু আটকে আছে মনে হয় লক্ষণে অ্যাবিসনাইগ্রা উপকারী হয়। 

(৭) আর্সেনিকঃ- পাকস্থলিতে যদি জ্বালা বোধ করে, অল্প অল্প পানি পান করে, অস্থিরতা থাকে তাহলে আর্সেনিক এ্যালঃ উপকারী হয়।

[বিঃদ্রঃ হোমিও ঔষুধ রোগের উপর ভিত্তি করে প্রয়োগ করা খুবই কষ্টকর। রোগীর শারীরিক ও মানসিক লক্ষণ ঔষধ লক্ষণের সাথে মিল থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ; তাই হোমিও বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ সেটিই গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করেন।]  

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.